রাজনীতি

পেকুয়া ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী সাবেক ছাত্রলীগ নেতা  বাদশার দুটি কথা

 

বার্তা পরিবেশক

পেকুয়া উপজেলার আর্থসামাজিক, বৈষম্য দুরীকরণ, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার জনমুখী উন্নয়নকে প্রান্তিক জনগোষ্টীর মাঝে পৌছে দিতে ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছি।

গত ১০ বছরের আওয়ামীলীগ সরকারের শাসানমালে ক্ষমতাসীন দলের কোন প্রতিনিধি উপজেলা পরিষদে না থাকার সুযোগে জননেত্রী শেখ হাসিনা সরকারের সার্বিক উন্নয়ন প্রান্তিক জনগোষ্টীর কাছে পৌছাতে অনেক পিছিয়ে রয়েছে এই পেকুয়া।

তার ধারাবাহিকতায় আমি রাজনীতি জীবনের ১৯ বছরের মধ্যে গত ১০ বছর সামাজিক, উন্নয়নমুলক কর্মকান্ডে এবং বর্তমান সরকারে জনমুখী উন্নয়ন শিক্ষা, স্বাস্থ্য, আইন শৃংখলা সহ সার্বিক উন্নয়নের ধারবাহিকতাকে পেকুয়া সর্বস্তরের জনতার কাছে পৌছে দিতে নিরলস ভাবে কাজ করেছি এবং করে যাচ্ছি। জনগণের জানমালের নিরাপত্তা সহ সার্বিক উন্নয়ন প্রান্তিক জনগোষ্টীর মৌলিক অধিকার যথাযথ বাস্তবায়নের নিমিত্তে আসন্ন পেকুয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে (নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন প্রত্যাশী) প্রার্থী হয়েছি।

স্বাধীনতার মহানায়ক জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ ও নীতি বুকে লালন করে দক্ষিণ এশিয়ার বৃহত্তম ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের পাঠশালায় ভর্তি হয়ে দলের দুঃসময়ে গত জোট সরকার আমলে আওয়ামীলীগ, যুবলীগ ও সহযোগি সংগঠনের নেতৃত্ব সার্বক্ষনিক রাজনীতির মাঠে ময়দানে সর্বত্রে ছিলাম এবং রয়েছি। বিগত সময়ে এস,এম জাকরিয়ার নেতৃত্বে গঠিত পেকুয়া উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক কমিটির সদস্য । ২০০৩ সালের পেকুয়া সদর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের আহবায়ক কমিটির সিনিয়র যুগ্ন আহবায়ক, পরবর্তীতে সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করি এবং ২০০৬ সালে মমতাজুল ইসলাম – জোবাইদুল্লাহ লিটনের নেতৃত্বে গঠিত পেকুয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি এবং ২০১৪ সালে পেকুয়া উপজেলা ছাত্রলীগের কিছু সময়কাল আহবায়কের দায়িত্ব পালন করেছি। চকরিয়া পেকুয়ার গণ মানুষের প্রিয় নেতা মাননীয় এমপি আলহাজ্ব জাফর আলম বি, এ (অনার্স) এম এ নেতৃত্বে আমাকে জেলা ছাত্রলীগের তৎক্ষালিন সভাপতি আলী আহমদ, সাধারণ সম্পাদক আবু তাহের আজাদের কমিটিতে কো-অপ্ট সহ-সভাপতি হিসেবে মনোনীত করেছিলেন । এছাড়া বঙ্গবন্ধু শিশু-কিশোর মেলা পেকুয়া উপজেলার সহ-সভাপতি ছিলাম।

দলের একজন তৃণমুলের কর্মী হিসেবে এবং দীর্ঘ সময় পেকুয়া উপজেলার প্রান্তিক জনগোষ্টীর অধ্যুাষিত মহল্লায় সামাজিক উন্নয়ন মুলক, জনকল্যানমুলক কর্মকান্ডে সার্বক্ষনিক নিজেকে নিয়োজিত রেখেছি যাহা সকলে অবগত ।

ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী সাবেক ছাত্রলীগ নেতা নাছির উদ্দিন বাদশা আরো বলেন, বঞ্চিত, অবেহেলিত, নিপিড়িত মানুষের অধিকার আদায়ের মানবাধিকার সংগঠন আইন সহায়তা কেন্দ্র (আসক) ফাউন্ডেশনের কক্সবাজার জেলার সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছি এবং বর্তমানে কেন্দ্রিয় কমিটির সহকারী পরিচালকের দায়িত্ব থেকে প্রান্তিক জনগোষ্টীর মৌলিক অধিকার যথাযথ বাস্তবায়ন সহ সরকারের উন্নয়ন মুখী কর্মকান্ডে কাজ করে যাচ্ছি। জনকল্যান মুলক কর্মকান্ডের নিরিখে আসক ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান থেকে সর্বোচ্চ সম্মানে ভুষিত হয়েছি।

তিনি আরো বলেন, মহাজোট সরকার গঠনের পর গত ২০১০ সালে চকরিয়া পেকুয়ার দায়িত্বপ্রাপ্ত সাবেক মহিলা এমপি বেগম শাফিয়া খাতুনের আর্থিক অনুদানে অামার প্রচেষ্টায় মছন্যাকাটা কবরস্থানের বাউন্ডারী ওয়াল নির্মাণ করেছি। মছন্যাকাটা কবরস্থান কমিটির সভাপতি ও মছন্যাকাটা জামে মসজিদ পরিচালনা কমিটির সদস্য পদে দায়িত্বে থেকে মসজিদের পূননির্মাণ কাজের নিজেকে জড়িত রেখেছি। পাশাপাশি মাদক বিরোধী স্লোগান, প্রতিরোধ মুলক কর্মে সম্পৃক্ত থেকে পাড়া মহল্লায় জনসচেতনতা সৃষ্টি করে ক্রীড়া উন্নয়নের প্রচারণা করেছি এবং পেকুয়া শেখ রাসেল ক্রীড়া পরিষদের সভাপতি দায়িত্ব থেকে কচি-কাচা শিক্ষার্থীদের ক্রীড়ার প্রতি সম্পৃক্ততা বৃদ্ধি করে তাহাদেরকে ক্রীড়া সামগ্রী ও জার্সি প্রদান করেছি।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকারের শিক্ষাবান্ধব উদ্যোগ বাস্তবায়নের নিমিত্তে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষা সচেতনতামূলক প্রচারণা করেছি । জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাসন আমলে প্রান্তিক জনগোষ্টীর শিক্ষার মান উন্নয়নে ২৭হাজার প্রাইমারী স্কুল ও বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ২৬ হাজার প্রাইমারী স্কুল জাতীয়করণ ও বিদ্যালয় বিহীন এলাকায় বিদ্যালয় স্থাপনে এবং প্রান্তিক জনগোষ্টীর সন্তানদেরকে সচেতনতার সরকারের যে মনোভাব তা প্রচারণার মাধ্যমে সর্বোত্তক প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছি।

পাশাপাশি পেকুয়া উত্তর মেহেরনামা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটির সহ-সভাপতি বর্তমানে সভাপতি দায়িত্বে থাকিয়া উত্তর মেহেরনামা এলাকার শিক্ষার মান উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছি। বর্তমান সরকারের আমলে অামার আবেদনের প্রেক্ষিতে বিদ্যালয়ের দীর্ঘ ৪৭ বছর পর স্থিত জমির সঠিক তথ্য উৎঘাটন পূর্বক বিদ্যালয়ের স্বার্থ রক্ষাসহ বাউন্ডারী ওয়াল নির্মাণ কাজ চলমান ।

পেকুয়া কমিউনিটিং পুলিশিং সমন্বয় কমিটির সদস্য দায়িত্ব থাকিয়া পেকুয়া সদরের আহমদ ডিলার চৌমুহনী, চৈরভাঙ্গা স্টেশন, চড়া পাড়া নতুন বাজার ও পূর্ব মেহেরনামা বাগগুজারা স্টেশনে ব্যবসায়ীদের সার্বিক নিরাপত্তার নিমিত্তে ব্যবসায়ী সমিতি গঠন ও কমিউনিটি পুলিশিং কমিটি গঠন পূর্বক সামাজিক নিরাপত্তার বিধান সমুন্নত করার নিমিত্তে গত ১৮ জুলাই ২০১৮ইং পেকুয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সমবায় কর্মকর্তার বরাবরে আবেদন করি। প্রশাসন কর্তৃপক্ষ যথাযথ পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করেন ।

পেকুয়া উপজেলা সর্বস্তরের জনতার দাবী রাষ্ট্রয়াত্ব সোনালী ব্যাংক পেকুয়া শাখা স্থাপনে অামি গত ১১এপ্রিল ১৫ সালে তাৎক্ষালিন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মারুফুর রশিদ খান ও সাবেক জেলা পরিষদের প্রশাসক বর্তমান জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমদ চৌধুরী ও সাবেক এমপি মোহাম্মদ ইলিয়াছ সুপারিশ সহকারে কক্সবাজার সোনালী ব্যাংক লিঃ এরিয়া অফিসের উপ-পরিচালকের মাধ্যমে গর্ভনর বরাবরে আবেদন করি । যাহা দীর্ঘ তদন্তের পর বর্তমান মাননীয় সাংসদ জাফর আলমের ঘোষণায় ও প্রচেষ্টায় আগামী জুনের মধ্যে পেকুয়ায় স্থাপন হতে যাচ্ছে।

এলাকার সার্বিক অবকাঠামো উন্নয়নের জন্য ২০০৯সালের মহাজোট সরকারের শুরুতে তাৎক্ষলিন মহিলা এমপি এথিন রাখাইনের মাধ্যমে গত ৩০ই জুন ২০০৯ সালে তাৎক্ষালিন স্থানীয় সরকার মন্ত্রী সাবেক আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক প্রয়াত ছৈয়দ আশরাফুল ইসলাম মহোদয় বরাবরে পত্র দিয়ে আমার প্রচেষ্টায় পেকুয়া-বিলহাছুড়া সড়ক, বারবাকিয়া – নাজির বাড়ী সড়ক, চৈরভাঙ্গা পূর্ব সড়ক, চড়া পাড়া বাজার-জিন্নত আলী চৌধুরী সড়ক, ডাঃ মোহাম্মদ আলী বাড়ী- আঁধা খালী সড়ক সহ অনেক গ্রামীন সড়ক পুনঃ সংস্কার ও নির্মাণ হয়। যাহা স্থানীয় পেকুয়া এলজিইডি অফিস ২০ই আগষ্ট ০৯ সালে, কক্সবাজার এলজিইডি অফিস ৮ই সেপ্টম্বর ০৯ সালে, স্বারক নং ৩৬৪২/২(১) স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় সরকার বিভাগ উন্নয়ন শাখা-২ থেকে গত ২২ জুলাই ২০০৯সালে স্বারক নং স্থাবি/উঃ-২/চবি উঃ প্রঃ-২/২০০৯/ ৮২৯ সিনিয়র সহকারী সচিব এস,এম আলম স্বাক্ষরিত প্রেরণ করেন।

পেকুয়ার অবহেলিত জনগণের অধিকার আদায়ের নিমিত্তে নিরলস ভাবে এলাকায় কাজ করে যাচ্ছি । বর্তমান সরকারের উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় সরকারের অনেক মন্ত্রী মহোদয় ও কেন্দ্রীয় নেতাদের শরনাপন্নায় অামার প্রচেষ্টায় উন্নয়নমুলক কর্মকান্ড তৃণমুলে পৌছিয়েছেন এবং চলমান রয়েছে।

অামার পরিচিতি*********

পেকুয়া উপজেলার সদর ইউনিয়নের উত্তর মেহেরনামা এলাকার মছন্যাকাটা মহল্লার শাহা আলম সওদাগরের ৪র্থ পুত্র। ২০০১ সালে বোয়ালখালী হাবিবিয়া আতরালীয়া সুন্নিয়া দাখিল মাদ্রাসা থেকে দাখিল, পাচলাইশ জামেয়া আহছানুল উলুম ফাযিল মাদ্রাসা হতে আলিম ও ফাযিল পাশ করি এবং পেকুয়া আনোয়ারুল উলুম দাখিল মাদ্রাসা হতে ১৯৯৪সনে ৫ম শ্রেণিতে বৃত্তি, বাঁশখালী সুপ্ত মেধা বিকাশ সংগঠন কর্তৃক বৃত্তি লাভ, ৭ম শ্রেণি হতে রাজাখালী আত্বতাহারিক সাহিত্য সংসদ ও বারবাকিয়া ফাঁশিয়াখালী প্রত্যাশা সংসদ থেকে মেধা বৃত্তি লাভ করি । এছাড়া পেকুয়া উপজেলা প্রেস ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ও সাবেক নির্বাচিত কার্যনির্বাহী সদস্য ছিলাম।

অাগামী পেকুয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস-চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে সকলের দোয়া কামনা করছি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যদি অামাকে নৌকা উপহার দেন ইনশাল্লাহ অাপনাদের দোয়া ও মূল্যবান ভোটে বিজয় নিশ্চিত করতে দলীয় নেতা ও কর্মীদের সাথে একযোগে কাজ করে পেকুয়াকে স্বপ্নের নগরীতে পরিণত করবো।

 

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close
Close