রাজনীতি

সেই দিন আর এই দিন

কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মোরশেদ হোসাইন তানিমের আবেগময় ফেইসবুক স্ট্যাটাস

বিশেষ প্রতিবেদন

প্রথমে বুয়েট এর মেধাবী শিক্ষার্থী আবরার পরিবারের প্রতি সমবেদনা এবং হত্যাকারীদের দৃষ্টান্ত মূলক সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।

মনে রাখবেন ২০০১-২০০৬ পর্যন্ত বিএনপি জামাত জোট যখন ক্ষমতায় ছিল সারাদেশে আওয়ামীলীগ ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের নিধন চলছে।যাদেরকে বেঁচে বেঁচে হত্যা করা হয়েছে।সেই দিন রাতে কেউ ঘরে থাকতে পারে নি।অনেক নেতাকর্মী তার বাবার জানাজায় অংশ গ্রহন করতে পারে নি।অনেকে তার বউ এর প্রেগ্ন্যাসির সময় পাশে থাকতে পারে নি।কেমন করুন অবস্থা ছিল অ মরা যারা ১/১১ এর দুঃসময় রাজপথে ছিলাম তারা জানি।

অনেকে দু’বেলা তাদের পরিবারে আহার জোগাড় করে দিতে পারে নি।অনেক নেতাকর্মী শতশত মিথ্যা মামলার বোঝা নিয়ে প্রবাস কেটেছে।অনেকে এক টানা ৫-৬-৭ বছর জেলে কারাবন্দী থেকে স্বাধীন বাংলার আকাশ বাতাশের ছোঁয়া পায় নি।ছেলে দেখে নি মায়ের মুখ,মা দেখে সন্তানের মুখ,কেউ রক্তাক্ত কেউ কেউ জেলে আবার কেউ বিদেশে কেউ শরীরের অঙ্গ পতঙ্গ হারিয়েছে।

কেমন ছিলো সেই দিন গুলো!!!

সেই সময় যদি সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুক বা সোশাল মিডিয়া থাকতো তবে আজকের দিনে তারা দলের পরিচয় দিয়ে হলুদ চেহেরাটা এই সমাজে দেখাতে পারতো না।

আমরা অযাচিত সমালোচনা কারী হুজুগে বাঙালি জাতি।না বুঝে না জেনে সমালোচনা করি।

সুতরাং বাংলাদেশ ছাত্রলীগের বিভিন্ন জেলা-উপজেলায় সব নেতা-কর্মীরা এক নয়।যারা বঙ্গবন্ধু-দেশরত্ন ও দেশকে হৃদয় দিয়ে প্রকৃত ভাবে ভালবাসে তারা কখনো অন্যায় করতে পারে না।

অন্যায়কারী দল ও জাতির শক্র ।সে কখনো ভাল মানুষ হতে পারে না।

মুষ্টিমেয় অন্যায়কারীদের কারণে সকলকে দোষী ভাবা ঠিক নয়।হাতের আঙ্গুল যেমন সব এক নয় তেমন প্রত্যেক মানুষের চরিত্র ও কর্মকান্ড এক রকম নয়।

বিপদ বা সমস্যা বলে আসে না,ব্যক্তি খারাপ হতে পারে তবে সংগঠন নয়।একজনের জন্য পুরো সংগঠনকে দায়ী করা যাবে না।

কারন ব্যক্তির চেয়ে দল বড়।তাই আবরার হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত আসামীদের ইতিমধ্যে ২৪ ঘন্টা না হওয়ার আগেই গ্রেফতার হয়েছো এবং সংগঠন থেকে স্হায়ী বহিষ্কার হয়েছে।যা অতীত দিন গুলোতে আমরা দেখি নি।

একদল লোক বঙ্গবন্ধুর নিজ হাতে গড়া ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ এর পুরো পরিবারকে কলংকিত করা,রাজনীতি নিষিদ্ধ করা,ফেসবুকে অপপ্রচার সহ নানান মুখী ষড়যন্ত্রের অপপ্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছে।

আমি মনে করি এই অবস্থায় সারাদেশে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সকল নেতাকর্মীদের সজাগ থেকে ফেসবুক,অনলাইন মিডিয়া সহ নিজ নিজ জায়গা থেকে সকল ষড়যন্ত্র প্রতিহত করার সময় এসেছে।

ষড়যন্ত্র অতীতে ছিলি আছে আর যুগে যুগে থাকবে যা সকলকে ঐক্যবদ্ধ ভাবে প্রতিহত করতে হবে।বাংলাদেশ ছাত্রলীগ পরিবার ঐক্যবদ্ধ থাকলে কখনো কোন ষড়যন্ত্রকারী জয়ী হতে পারে নি আর পারবেও না।

শুভেচ্ছা সহ-
মোরশেদ হোসাইন তানিম
সাধারণ সম্পাদক ভারপ্রাপ্ত
বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কক্সবাজার জেলা শাখা।
সাবেক যুগ্ন সাধারন সম্পাদক
বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কক্সবাজার জেলা শাখা।
সাবেক সভাপতি
বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কক্সবাজার শহর শাখা।
সাবেক সভাপতি
কক্সবাজার টেকনিক্যাল কলেজ
সাবেক সদস্য
বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কক্সবাজার শহর শাখা

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close
Close