কক্সবাজার কথা

করোনা নিয়ে কিছু কথা’হাকিমুন নেছা বাপ্পি”

ভয়ংকর মহামারি করোনা ভাইরাস সংক্রমণের উৎপত্তি চীন থেকে। সম্প্রতি বাংলাদেশেও ২/৩ জন করোনা ভাইরাস রোগী সনাক্ত হয়েছে বলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর নিশ্চিত করেন। আমাদের উচিত কি করে এই রোগ থেকে আমরা সবাই সচেতন হয়ে দেশের মানুষ গুলোকে এই রোগ সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধির মাধ্যমে মুক্ত রাখবো অথবা কিভাবে সমস্যার সমাধান হবে এই চিন্তা করা।
কিন্তু তা মোটেও হচ্ছে না আমাদের দেশের মানুষ গুলো সুযোগ সন্ধানী। সম্প্রতি করোনা ভাইরাসের এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে কিছু মাস্ক ব্যবসায়ী বেপরোয়া হয়ে শুরু করেছে মাস্ক নিয়ে রমরমা বাণিজ্য। ১০ টাকায় বিক্রি হওয়া  মাস্ক এখন বিক্রি হচ্ছে ৫০ টাকা থেকে শুরু শত টাকায়। এইটা কি কোন মানবিকতা অথবা  মনুষ্যত্বের মধ্যে পড়ে। কি করে আর আমরা একটি সুন্দর, দূর্নীতি মুক্ত বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলার চিন্তা করবো আর গড়বো।যে দেশে রোগ, মহামারি নিয়ে ব্যবসা শুরু করে দেয় কিছু লোভী ও মনুষ্যত্বহীন ব্যবসায়ীরা সে দেশের ভবিষ্যৎ কোথায়।

এক সময় মাস্ক দোকানে,ফার্মেসিতে পড়ে থাকতো এমন কি ফুটপাতে হকারেরা, গাড়িতে গাড়িতে একটা মাস্ক বিক্রির জন্য ঘন্টার পর ঘন্টা সময় পার করতো কিন্তু যখন একটা সুযোগ এলো ব্যবসার তখন আর হাত ছাড়া করছে না লোভী ব্যবসায়ীরা। কিছু দিন আগেও পেঁয়াজের ব্যবসায়ীরা সেই সুযোগ কাজে লাগিয়ে রমরমা বাণিজ্য চালিয়েছিল। যখনই এই রকম কোন দুঃসময় আসে দেশে তখনই হাত ছাড়া করতে চাই না এই মনুষত্বহীন লোভী ব্যবসায়ীরা।
এসব লোভী, মনুষ্যত্বহীন ব্যবসায়ীদের খুজে খুজে আইনের আওতায় আনা হোক।আমাদের স্বাধীন দেশে এসব সুবিধাবাদী ব্যবসার প্রচলন বন্ধ করা হোক।এতে সমাজের ক্ষতি, জনগণের ক্ষতি, সর্বোপরি দেশের ক্ষতি সাধন হবে।আমাদের উচিত যাদের সাধ্য আছে তারা যেন সাধ্য মতো গরীব, অসহায় রাস্তায় চলাচল করা নারী,পুরুষ ও পথ শিশুদের বিনামূল্যে মাস্ক বিতরণ করা যাতে সহজেই মহামারি করোনা ভাইরাস থেকে পরিত্রাণ পাওয়া যায়।
এটাই হলো মানবিকতা আর মনুষ্যত্ব সবাই মিলে এগিয়ে আসলে  করোনা ভাইরাস নামক এই সংক্রমণ রোগ থেকে  বাংলাদেশকে মুক্ত রাখা দূরসার্ধ কোন ব্যাপার না।
প্রশাসনের দৃষ্টি আর্কষণ করে বলছি করোনা ভাইরাস নিয়ে বেপরোয়া মাস্ক ব্যবসায়ীদের কঠোর পদক্ষেপ নিতে।আসুন সবাই মিলে আমরা এই চড়া দামে বিক্রি করা মাস্ক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ায়।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close
Close